মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
সুন্দরবন

নদী পথে : খুলনা লঞ্চঘাট খেকে লঞ্চযোগে সুন্দর বন যাওয়া যাবে। রাতে ও সকালে লঞ্চ রয়েছে।

 সড়ক পথে : খুলনা খেকে বাসযোগে কয়রা হয়ে সুন্দরবন যাওয়া যায়।

শিরোমণি স্মৃতিসৌধ

খুলনা থেকে বাসে ফুলতলা যাবার পথে শিরোমনি বাসস্ট্যান্ডে নামতে হয়। পরে স্থানীয় হালকা যানবাহনে করে যাওয়া যায়।

গল্লামারী

খুলনা শহরের সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড থেকে রিক্সা কিংবা অটোরিক্সায় যাওয়া যায়।

বীরশ্রেষ্ঠ সমাধিসৌধ

খুলনা থেকে বাসে রূপসা উপজেলায় পৌঁছে স্থানীয় যানবাহনে বাগমারা গ্রামে যাওয়া যায়।

সেনহাটি খুলনা থেকে বাসে দিঘলিয়া যাবার পথে নদী পারাপার হয়ে স্থানীয় যানবাহন পাওয়া যায়
বকুলতলা (জেলা প্রশাসকের বাংলো)

খুলনা শহরে রূপসা নদীর তীরে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের বাংলো। জেলা প্রশাসক মহোদয়ের উদারতায় যে কোন সময় পরিদর্শনের অনুমতি পাওয়া যায়।

রাড়ুলী খুলনা থেকে বাসে পাইকগাছা যাবার পথে, রাড়ুলী পাইকগাছা সংযোগ সড়কে নেমে, সেখান থেকে রিক্সা কিংবা অটোরিক্সায় যাওয়া যায়
পিঠাভোগ

খুলনা থেকে বাসে রূপসা উপজেলায় গিয়ে সেখান থেকে স্থানীয় যানবাহন পাওয়া যায়।

দক্ষিনডিহি

খুলনা থেকে বাসে ফুলতলা উপজেলায় গিয়ে, সেখান থেকে অটোরিক্সা কিংবা স্থানীয় বাহনে যাওয়া যায়

১০ সুন্দরবনের কটকা

নদী পথে : খুলনা লঞ্চঘাট খেকে লঞ্চযোগে কটকা যাওয়া যাবে। রাতে ও সকালে লঞ্চ রয়েছে।

 

১১ সুন্দরবনের দুবলার চর

নদী পথে : খুলনা লঞ্চঘাট খেকে লঞ্চযোগে সুন্দরবনের দুবলার চর যাওয়া যাবে। রাতে ও সকালে লঞ্চ রয়েছে।

১২ সুন্দরবনের হিরণ পয়েন্ট

নদী পথে : খুলনা লঞ্চঘাট খেকে লঞ্চযোগে সুন্দরবনের হিরণপয়েন্ট যাওয়া যাবে। রাতে ও সকালে লঞ্চ রয়েছে।

১৩ সুন্দরবনের করমজল

দাকোপ উপজেলা সদর থেকে করমজলের দুরত্ব ৩০ কি:মি:, জেলা শহর থেকে ৫৫ কি:মি:। এখানে নৌপথ ও সড়ক পথে সহজেই ভ্রমন করা যায়।

১৪ রূপসার পাড়ে খান জাহান আলী সেতু

খুলনা শহর থেকে ইজিবাইক বা রিক্সায় খানজাহান আলী সেতু-তে যা্ওয়া যায়

১৫ চুকনগর বদ্ধভূমি

খুলনা শহর থেকে বাস বা মাহেন্দ্র-তে চুকনগর বদ্ধভূমি যাওয়া যায়