সিটিজেন চার্টার

ভূমিকা

 

খুলনা সিটি কর্পোরেশন একটি স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান। নির্বাচিত জন প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে গঠিত প্রতিষ্ঠানটি সর্বদাই নাগরিকদের নিকট সেবা প্রদানে দায়বদ্ধ। দৈনন্দিন নাগরিক সুবিধা প্রদান এর মাধ্যমে জীবন যাত্রাকে সহজ ও গতিশীল করার মানসে শতাধিক বছর পূর্বে এ প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু।

 

স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান হিসাবে সিটি কর্পোরেশনের স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার জন্য ও নাগরিকদের সেবা গ্রহণ প্রক্রিয়া সহজ করনের জন্য ‘‘নাগরিক সনদ’’ একটি অতি গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করবে।

 

‘‘নাগরিক সনদ’’-এ সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন বিভাগের গুরুত্বপূর্ন সেবা সমূহ, সেবা গ্রহনের প্রক্রিয়া সংক্ষিপ্ত আকারে তুলে ধরা হলো। এর ফলে সেবা গ্রহীতাদের মধ্যে একদিকে যেমন সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে-- অন্যদিকে সেবা গ্রহীতাদের প্রতি কর্পোরেশনে কর্মরতদের দায়বদ্ধতা বৃদ্ধি পাবে।

 

 

মেয়র

খুলনা সিটি কর্পোরেশন

খুলনা।

 

 

 

 

 

 

 

 

প্রকৌশল বিভাগ

খুলনা সিটি কর্পোরেশন এর প্রকৌশল বিভাগ নগরীর ক্রম বর্ধমান জনসংখ্যা ও সীমানা সমপ্রসারনের বিষয়টি লক্ষ্য রেখে রাস্তা-ঘাট, ড্রেন-কালভার্ট, বাজার, পাক ও কমিউনিটি সেন্টার প্রভৃতির অবকাঠামো নির্মাণ ও সংস্কার কার্যক্রমে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। রাস্তা, ফুটপাত, সারফেস ড্রেন, ভাঙ্গা স্লাব, ভাঙ্গা ম্যানহোল কভার ইত্যাদি বিষয়ে আবেদন/ অভিযোগ দাখিলের ৭ দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী কর্তৃক ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

 

]প্রকৌশল বিভাগের বিভিন্ন কাজের মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্যঃ

সড়ক, ড্রেন, কালভার্ট, হাট-বাজার, সপিং কমপ্লেক্স, কবরখানা, শ্মশান, মিলনায়তন, কমিউনিটি সেন্টার, পার্ক, সড়কদ্বীপে ফোয়ারা, ভাস্কর্য প্রভৃতি নির্মাণ ও সংরক্ষন।

 

এ সমস্ত পূর্ত্ত কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনে প্রকৌশল বিভাগ পিপিআর-৩ অনুসরন করে ঠিকাদারের মাধ্যমে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করে থাকে। পূর্ত্ত বিভাগ থেকে কর্পোরেশনের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ করার জন্য ঠিকাদারদের নির্দিষ্ট ফিস গ্রহণ পূর্বক লাইসেন্স প্রদান করা হয়। প্রকল্পের কার্য সমাপ্তির পর বিল প্রনয়ণ করে পরিশোধের জন্য তাৎক্ষনিক হিসাব শাখায় প্রেরণ করা হয়।

ঠিকাদারদের লাইসেন্স পাবার পদ্ধতি নিম্নরূপঃ

নাগরিক সেবার ধরন

সুবিধা পেতে হলে কি করতে হবে

সুপিধা পেতে কত সময় লাগবে

কার সাথে যোগাযোগ করতে হবে

ঠিকাদার লাইসেন্স

১ম শ্রেনী -

২য় শ্রেনী -

৩য় শ্রেনী -

প্রয়োজনীয় টিকেটসহ আবেদন করতে হবে এবং সাথে নিম্নোক্ত কাগজপত্র সংযুক্ত করতে হবে।

1.       ট্রেড লাইসেন্স

2.      আয়কর সনদপত্র

3.      ভ্যাট রেজিষ্ট্রেশন

4.       অভিজ্ঞতা সনদপত্র

১৫ দিন

 

প্রধান প্রকৌশলী

 

ঠিকাদার লাইসেন্স নবায়ন

১ম শ্রেনী -

২য় শ্রেনী -

৩য় শ্রেনী -

অফিসিয়াল প্যাডে দরখাস্ত করতে হবে এবং সাথে নিম্নোক্ত কাগজপত্র দেখাতে হবে।

১.  ট্রেড লাইসেন্স

2.      আয়কর সনদপত্র

3.      ভ্যাট রেজিষ্ট্রেশন

4.       অভিজ্ঞতা সনদপত্র

১০ দিন

 

প্রধান প্রকৌশলী

 

 

বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর অধীনে কাউন্সিলরদের সুপারিশক্রমে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে  বার্ষিক কর্ম-পরিকল্পনার আওতায় অন্তর্ভুক্ত করে রাস্তা, ড্রেন, নির্মান-সংস্কার প্রভৃতি কার্যক্রম গ্রহন করা হয়ে থাকে। তবে এলাকার নাগরিকদের আবেদন সূত্রে (কাউন্সিলরদের সুপারিশ সহ) কখনো কখনো রাস্তা-ড্রেন-কালভার্ট উন্নয়নের কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়।

চলমান কাজে কোন অভিযোগ থাকলে তা অবিলম্বে আমলে এনে ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়ে থাকে।

 

 

বিদ্যুৎ শাখা

সার্ভিস সর্মহঃ

ক) সড়ক বাতি সংযোজন ও সংরক্ষণ ও ব্যবস্থাপনা।

খ) কর্পোরেশনের নিজস্ব ভবন সমূহের বৈদ্যুতিকরণ ও সংরক্ষণ।

গ) নগরীর পার্ক সমূহে বৈদ্যুতিকরণ ও সংরক্ষন।

ঘ) কবরখানা ও শ্মশান সমূহে বৈদুতিকরণ ও সংরক্ষণ।

 

সেবার ধরন

পদ্ধতি

কত সময় প্রয়োজন

রাস্তার বাতি/পোষ্ট কোথাও নষ্ট বা ক্ষতিগ্রস্ত হলে

সাদা কাগজে আবেদন অথবা সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগ খাতায় অভিযোগ লিপিবদ্ধ করণ অথবা টেলিফোনে অভিযোগ প্রদান।

ষ্টক থাকা সাপেক্ষে ১ থেকে ৩ দিন

 

জোন- এ ওয়ার্ড নং ১৬ থেকে ৩১ পর্যন্ত।

উপ সহকারী প্রকৌশলী

নগর ভবন কে ডি ঘোষ রোড, খুলনা

+৮৮-০৪১-৮১০৩৮১-৪

এক্সটেনশন - ১৪৮

 

জোন- বি ওয়ার্ড নং ১ থেকে ১৫ পর্যন্ত।

উপ সহকারী প্রকৌশলী

খালিশপুর শাখা অফিস

+৮৮-০৪১-৭৬০০০২

 

 

 

 

 

 

 

 

 

যানবাহন শাখা

 

 

বিভিন্ন ধরনের যানবাহন, রোলার, এ্যাম্বুলেন্স, এ্যাসফল্ট প্লান্টের ভাড়ার হারঃ

 

ক্রমিক নং

যানবাহনের বিবরণ

সময়

ভাড়া (প্রতিদিন)

মন্তব্য

১.

এ্যাম্বুলেন্স

প্রয়োজন অনুযায়ী

শহরের অভ্যন্তরে প্রতিদিন প্রতি কিঃ মিঃ ১০/- টাকা হারে সর্বনিম্ন ভাড়া ৩০০/- টাকা, শহরের বাইরে প্রতি কিঃ মিঃ ১০/- হারে আপডাউন ভাড়া গ্রাহককে প্রদান করিতে হইবে।

ফেরীভাড়া , টোল ইত্যাদি গ্রাহককে পরিশোধ করতে হবে।

২.

 রোড রোলার

সকাল ৮.০০ হতে বিকাল ৫.০০ পর্যন্ত

কেসিসি ঠিকাদারদের জন্য ২০০০/-

অন্যান্য সংস্থার ঠিকাদারদের জন্য ২,৮০০/-

জ্বালানী, ও অন্যান্য খরচ ভাড়া গ্রহনকারী বহন করবেন।

৩.

সয়েল কম্পাকটর রোলার

৩,৫০০/-

৪.

টায়ার ক্রেন 

৫,০০০/-

৫.

ব্যাক হুইল লোডার

৬,০০০/-

৬.

হুইল লোডার

৬,০০০/-

৭.

ট্রাক্টর উইথ লোবেড ট্রেইলর

৮,০০০/-

৮.

বুলডোজার

৫,০০০/-

৯.

পেভার মেশিন

৫,০০০/-

১০.

বিটুমিন ডিষ্ট্রিবিউটর

২,০০০/-

১১.

লিফটার বীম

২,০০০/-

১২.

পানির গাড়ি

২,০০০/-

১৩.

গবধরনের  ট্রাক

২,০০০/-

১৪.

বড় ডাম্প ট্রাক (১০ চাকা বিশিষ্ট)

৩,৫০০/-

১৫.

ডি স্ল্যাজিং ভ্যাকুয়ম ট্যাংক

১,৫০০/-

১৬

এ্যাসফল্ট প্লান্ট

প্রয়োজন অনুযায়ী

কার্পেটিং (পেভার বাদে) - ১৪০/-কার্পেটিং (পেভার সহ)- ১৫০/-

সিলকোট  -  ৪৫/-

জ্বালানী ও অন্যান্য খরচ সহ

 

* দর পরিবর্তনের পুনরাদেশ না হওয়া পর্যন্ত উল্লেখিত ভাড়া কার্যকর থাকবে।

 

 

 

 

ভান্ডার শাখা

সেবা

নিয়ম/প্রক্রিয়া

কত সময় প্রয়োজন

খুলনা সিটি কর্পোরেশন এলাকার

ওয়ার্ড ম্যাপ - ১৫০(প্রতিটি) ম্যাপ রোড ম্যাপ ও ড্রেনের নেট ওয়ার্ক ম্যাপ -মূল্য ৳ ২০০/-  (প্রতিটি)

 

সাদা কাগজে অথবা নির্দিষ্ট প্যাডে (মা ও শিশু টিকিট সহ) মাননীয় মেয়র অনুকূলে আবেদন সূত্রে অনুমোদন পূর্বক সরবরাহ করা হয়।

১দিন

 

স্বাস্থ্য বিভাগ

খুলনা সিটি কর্পোরেশন অর্ডিন্যান্সের ১৯৮৪’র ৭৯ এবং ৮১ ধারা অনুযায়ী কর্পোরেশন নগরবাসীর স্বার্থে স্বাস্থ্য কেন্দ্র, মাতৃ সদন, হাসপাতাল বা ডিসপেনসারী প্রতিষ্টা, পরিচালনা ও রক্ষনাবেক্ষণ করে থাকে। কেসিসি নিয়ন্ত্রিত নগর স্বাস্থ্য ভবন থেকে স্বাস্থ্য সহায়তা, ভেটেরেনারী সার্ভিস, প্রসূতিদের জন্য স্বাস্থ্য সুবিধা ইপিআই প্রোগ্রাম, যক্ষা, ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রন সংক্রান্ত সুবিধা/সেবা দওয়া হয়ে থাকে। স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে দৈনন্দিন নাগরিকদের যেসব সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে তার একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণী এবং সেবাসমূহ পাবার ক্ষেত্রে যে পদ্ধতি অনুসৃত হয় তা নিম্নে উল্লেখ করা  হলোঃ

সেবার ধরন

কিভাবে সেবা গ্রহণ করা যাবে

কত সময় প্রয়োজন

কার সাথে যোগাযোগ করতে হবে

অফিসের অবস্থান

জন্ম নিবন্ধন

ওয়ার্ড অফিসে গিয়ে নির্ধারিত ফরম পূরণ করতে হবে। এ সময় জন্ম তারিখের স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে হবে। 

তৎক্ষনিক

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড সচিব

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড অফিস

জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রাপ্তি

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনার নিকট আবেদন করতে হবে।                              ব।

১দিন

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড সচিব

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড অফিস

এ আর ভি (কুকরে কামড়ানো ইনজেশন সরকার কর্তৃক সরবরাহকৃত)

১.  ডাক্তারী সনদপত্রসহ আবেদন করতে হবে।

২. আবেদনের সাথে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনারের প্রত্যয়ন পত্র জমা দিতে হবে।

৩.  নির্ধারিত নাম মাত্র মূল্য পরিশোধ   করতে হবে।

সববরাহ থাকা সাপেক্ষে তৎক্ষণিক প্রদান করা  হয়।

প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা  ফোন ৭২০৬৪৮

নগর স্বাস্থ্য ভবন  শের-এ-বাংলা রোড, খুলনা।

রাবিপুর ইনজেকশন (কুকুরে কামড়ানো প্রতিশেধক কেসিসি কর্তৃক ক্রয়কৃত)

১.  ডাক্তারী সনদপত্রসহ আবেদন করতে   হবে।

২. আবেদনের সাথে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনারের এই মর্মে প্রত্যায়ন পত্র থাকতে হবে যে আবেদনকারী নিঃস্ব।

৩. বিনা মূল্যে ইনজেকশন সরবরাহ করা হবে।

মজুত থাকা সাপেক্ষে ২দিন

প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা  ফোন ৭২০৬৪৮

নগর স্বাস্থ্য ভবন  শের-এ-বাংলা রোড, খুলনা।

ইপিআই ভ্যাকসিনস (বিসিজি, ডিপিটি, হেপাটাইটিস-বি, হাম,টিটি ও ভিটামিন-এ

এক বছরের নিচে যে কোন শিশুকে টিকা দেওয়া হয়। শিশুকে নিকটস্থ নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র, সরকারী-বেসরকারী হাসপাতাল বা আউটরিচ কেন্দ্র নির্ধারিত সময়ে উপস্থিত করাতে হবে। ভ্যাকসিন সহ সব কার্ড বিনামূল্যে বিতরন করা হবে।

তৎক্ষনিক এবং জাতীয় কর্মসূচীর অধীনে নির্দিষ্ট দিনে

সংশ্লিষ্ট প্যারামেডিক অথবা

প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা

 ফোন ৭২০৬৪৮

সংশ্লিষ্ট নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র বা হাসপাতাল বা নগর স্বাস্থ্য ভবন

নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র

মহানগরীতে ৩০টি নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও ৩টি মাতৃসদন রয়েছে। এখানে দৈনন্দিন রুগীদের ফ্রি চেক আপ, ফ্রি পরামর্শ এবং স্বল্প মূল্যে ঔষধ দেওয়া হয। সিটি কর্পোরেশন ও পার্টনার এনজিওর মাধ্যমে কেন্দ্র গুলো পরিচালিত হয়্

সংশ্লিষ্ট নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র

 মেডিকেল অফিসার

প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা  ফোন ৭২০৬৪৮

নির্দিষ্ট তারিখ অনুযায়ী

ভ্রাম্যমান চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম

  1. ফ্রি চেক আপ
  2. ফ্রি মরামর্শ
  3. কিছু ক্ষেত্রে ফ্রি ঔষধ
  4. সিটি কর্পোরেশনের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারী
  5. মুক্তি যোদ্ধা পরিবার পরিজন

বিভিন্ন ওয়ার্ডের জন্য পর্যায়ক্রমে ভাবে রুটিন করা থাকে। রুটিন অনুযায়ী নির্দিষ্ট ওয়ার্ডে নির্দিষ্ট তারিখে স্বাস্থ্য সুবিধা পাওয়া যাবে।

প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা  ফোন ৭২০৬৪৮

নির্দিষ্ট তারিখ অনুযায়ী

           

 

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ বা পরিচ্ছন্ন শাখা

          খুলনা সিটি কর্পোরেশন একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানের প্রধান প্রধান কার্যাবলীর মধ্যে কঞ্জারভেন্সী বিভাগের কার্যক্রম অন্যতম। কঞ্জারভেন্সী বিভাগের কার্যক্রম নিম্নরূপঃ

বিষয়

সেবা সংক্ষিপ্ত বিবরণ

অভিযোগ থাকলে কার নিকট জানাতে হবে

অফিসের অবস্থান

ড্রেন পরিষ্কার

খুলনা সিটি কর্পোরেশন ৩১টি ওয়ার্ডে বিভক্ত। প্রতিটি ওয়ার্ডে শ্রমিক নিয়োজিত আছে। ওয়ার্ড কমিশনারের নির্দেশ মোতাবেক কঞ্জারভেন্সী সুপারভাইজারের তদারকীর মাধ্যমে ৮/১০ দিন অন্তর প্রতিটি ড্রেন পরিস্কার করা হয়। মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনের লক্ষ্যে প্রত্যেক ওয়ার্ডের ড্রেন শ্রমিক দ্বারা পরিস্কার করা হয। তা ছাড়া বিভিন্ন সময়ে বিশেষ অভিযানের মাধ্যমে সম্মানিত কমিশনার বৃন্দের সুপারিশ মোতাবেক ড্রেন পরিষ্কার করা হয় এবং আবর্জনা তিন চাকার ভ্যান গাড়ীর মাধ্যমে সেকেন্ডারী পয়েন্টে আনা হয়। সেকেন্ডারী পয়েন্ট ফেলে ট্রাক যোগে প্রতিদিন গার্বেজ ডিসপোজল এরিয়ায় স্থানান্তর করা হয।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনার /ওয়ার্ড সচিব/কনঃ সুপারভাইজার অথবা কঞ্জারভেন্সী অফিসার

ফোন- ৭৩০১২৮

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড অফিস অথবা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোন- ৭৩০১২৮

জলাবদ্ধতা দূরীকরণ

জলাবদ্ধতা দূরীকরণের জন্য বড় বড় ড্রেন, খাল ও আউট লেট গুলি শুষ্ক মৌসুমে বছরে এক বার মাটি উত্তোলন করা হয়। প্রয়োজনে কোন কোন সময় বড় ড্রেনগুলি দুই পেড়ীমাটি উত্তোলন করে জলাবদ্ধতা দূরীকরণ করা হয়।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনার / ওয়ার্ড সচিব / কনঃ সুপারভাইজার অথবা কঞ্জারভেন্সী অফিসার

ফোন- ৭৩০১২৮

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড অফিস অথবা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

রাস্তা ঝাড়ু

প্রত্যেক ওয়ার্ডে নিয়োজিত ঝাড়ুদারের মাধ্যমে প্রতিদিন প্রধান প্রধান সড়ক ও লেন, বিভিন্ন পার্ক, মার্কেটসহ ওয়ার্ডের ছোট- বড় রাস্তা, গলিপথ, ফুটপাত ঝাড়ুদিয়ে পরিষ্কার করা হয।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনার / ওয়ার্ড সচিব / কনঃ সুপারভাইজার অথবা কঞ্জারভেন্সী অফিসার

ফোন- ৭৩০১২৮

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড অফিস অথবা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

মশক নিধন কার্যক্রম

মশক নিধন কার্যক্রম মোট দুটি পদ্ধতিতে পরিচালিত হয়।

প্রথমটি হল- প্রতিটি ওয়ার্ডে ১(এক) জন করে স্প্রে-ম্যান আছেন যিনি লার্ভিসাইড ঔষধ হ্যান্ড স্প্রে-মেশিন দ্বারা স্প্রে করে মশার লার্ভা নিধন করে থাকে।

দ্বিতীয়টি হল- একই স্প্রে ম্যান দ্বারা ফগার মেশিনের মাধ্যমে উড়ন্ত মশা মারার জন্য এ্যাডাল্টিসাইড স্প্রে করা হয়। যেমন- প্রধান ড্রেন, কালভার্ট এর নীচে, ঝোপ-জঙ্গল, মশার আশ্রয় স্থলে ফগিং করা হয। তাছাড়া ডোবা-নালা ও মজা পুকুর শ্রমিক দ্বারা পরিস্কার করা হয়।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনার / ওয়ার্ড সচিব / কনঃ সুপারভাইজার অথবা কঞ্জারভেন্সী অফিসার

ফোন- ৭৩০১২৮

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড অফিস অথবা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

গার্বেজ অপসারন

খুলনা মহানগরীতে প্রতি প্রায় ৫২০ টনের উর্ধ্বে আবর্জনা উৎপন্ন হয়। যা সিটি কর্পোরেশনে ট্রাক ও কন্টিনারের মাধ্যমে প্রতিদিন সিটি কর্পোরেশনের নিজস্ব জায়গায় (রাজবন্দ ট্রেন্সিং গ্রাউন্ডে) সকাল বিকাল দুই বেলা আবর্জনা অপসারন করা হয়।

খুলনা মহানগরী এলাকায় কর্মরত বেসরকারী সংস্থা সমূহ বাড়ী বাড়ী থেকে গৃহস্থলী বর্জ্য সংগ্রহ করে ভ্যানের মাধ্যমে সেকেন্ডারী পয়েন্টে আনে। উল্লেখিত আবর্জনাও সিটি কর্পোরেশনের ট্রাক দ্বারা পরিস্কার করা হয।

খুলনা মহানগরীতে কর্মরত এনজিও সংস্থার মধ্যে হতে ৪টি এনজিও যেমন- প্রিজম বাংলাদেশ, প্রদীপণ, সমাধান ও রাজটিক উল্লেখিত বর্জ্য হতে জৈব সার প্রস্ত্তত করছে। উল্লেখিত সার সীমিত টাকায় পেয়ে এলাকার কৃষকেরা উপকৃত হচ্ছে এবং এলাকার পরিবেশের উন্নতি হচ্ছে।

সুপারভাইজার

গ্যারেজ শাখা

ফোন - ৭২০৩৩৭

অথবা

কঞ্জারভেন্সী অফিসার ফোন- ৭৩০১২৮

যানবাহন শাখা

 অথবা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

ক্লিনিক্যাল বর্জ্য অপসারণ

বে-সরকারী সংস্থা প্রদীপনের সহায়তায় খুলনা মহানগরীতে অবস্থিত সরকারী জেনারেল হাসপাতাল সহ ৬৮টি বে-সরকারী ক্লিনিকের বর্জ্য ৩ভাবে বিভক্ত করে নিজস্ব পরিবহনের মাধ্যমে ক্লিনিক মালিকে সমান্য সার্ভিস চার্জের বিনিময়ে এই বর্জ্য সংগ্রহ করে কেসিসি রাজবাধ টেন্সিং গ্রাউন্ডে নির্দিষ্ট স্থানে অপসারন করা হয়।

প্রদীপন এনজিও

ফোনঃ ৭৩০১০৮

অথবা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

প্রদীপন এনজিও

ফোনঃ ৭৩০১০৮

অথবা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

স্যানিটেশন কার্যক্রম

জাতীয় উন্নয়নের একটি অন্যতম পূর্বশর্ত হল জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন। বিগত দুই দশকে গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফলে বাংলাদেশের জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থা বিশেষ করে স্যানিটেশন পরিস্থিতির যথেষ্ট উন্নয়ন হয়েছে। সরকারী বিভাগ সমূহের পাশাপারিশ আধাসরকারী. স্বায়ত্তসাশিত প্রতিষ্টান ও বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা সমন্নিত উদ্যেগে এ ক্ষেত্রে যথেষ্ট ইতিবাচক ভুমিকা রেখেছে।সকলের সক্রিয় অংশগ্রহনের মাধ্যমে গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ঘোষনা অনুযায়ী ২০১০ সালের মধ্যে সবার জন্য স্যানিটেশন সুবিধা নিশ্চিত করনের জন্য খুলনা সিটি কর্পোরেশন ইতোমধ্যে বিশেষ পদ&&ক্ষপ গ্রহন করেছে।

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

মরা জীবজন্তু অপসারন

সিটি কর্পোরেশন এলাকার মধ্যে রাস্তার উপর মরে থাকা জীবজন্তুর মৃত দেহ তৎক্ষনিক ভাবে ডোম শ্রমিক দ্বারা অপসারন করা হয়।

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

বে-ওয়ারিশ ও পাগলা কুকুর নিধন

কেসিসি’র ৩১টি ওয়ার্ডে কার্যক্রমে ৪জন কুকুর ধরা শ্রমিক দ্বারা বে-ওয়ারিশ ও পাগলা কুকুর নিধনের কার্যক্রম চালানো হয়।

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

কসাইখানা

পরিবেশকে দূষণমুক্ত রাখা এবং খাবার উপযোগী গবাদী পশু জবেহ করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করার জন্য রূপসা, গল্লামারী ও খালিশপুরের কেসিসি কষাইখানা রয়েছে। সোমবার ব্যতীত প্রতিদিন ভোর ৪টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকে। মাংশ বিক্রয়ের উদ্দ্যেশে কেউ পশু জবাহ করতে চাইলে নির্দিষ্ট ফি পরিশোধ সাপেক্ষে তা পারবে।

v        প্রতিটি গরুর ফি -১৫/- টাকা

v        প্রতিটি মহিষের ফি - ২০/- টাকা

v        প্রতিটি ছাগল/ভেড়ার ফি-৫/- টাকা

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

কবরস্থান/ শ্মশান ঘাট পরিস্কার

প্রতি দুই মাস অন্তর পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয্। এছাড়া বিশেষ বিশেষ ধর্মীয় গুরুত্বপূর্ন সময়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয।

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

কোরবানীর সময়ে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা

কোবানীর সময়ে বিভিন্ন স্থানে পশু কোরবানী দেওয়া হয়। এ শহর ব্যাপি রাস্তা -ঘাট পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নের বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

ফোনঃ ৭৩০১২৮

কঞ্জারভেন্সী বিভাগ

 

 

পোষা কুকুরের লাইসেন্সঃনির্দিষ্ট ফি জমা সাপেক্ষে লাইসেন্স ও বেল্ট প্রদান করা হয়।

অভিযোগ থাকলেঃ২৪ ঘন্টার মধ্যে ড্রেন পরিষ্কার/ গার্বেজ অপসারণ করা হয়।

 

বাজার শাখা

বাজার শাখা খুলনা সিটি কর্পোরেশন নিয়ন্ত্রণাধীণ ৮টি সরকারী বাজার ও ১৮টি নিজস্ব হাটবাজারের ব্যবস্থাপনা ও রক্ষনাবেক্ষণ করে থাকে।

কর্পোরেশনে এলাকায় নগরবাসীর নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্য সামগ্রী অতি অল্প সময়ে এবং নিকটবর্তী স্থান হতে সংগ্রহের লক্ষ্যে পাইকারী ও খুচরা মালামাল সহজলভ্যে ক্রয়েরসুবিধার্থে হাট-বাজার স্থাপন করে নাগরিক সেবা প্রদান করা হয়।

খুলনা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় মোট হাট-বাজারের সংখ্যা        = ২৬ টি।

সরকারী হাট-বাজারের সংখ্যা                                           = ০৮ টি।

নিজস্ব হাট-বাজারের সংখ্যা                                             = ১৮ টি।

টেন্ডার প্রদানকৃত হাট-বাজারের সংখ্যা                                 = ০৬ টি ।

টেন্ডারের প্রক্রিয়াধীণ হাট-বাজারের সংখ্যা                             = ০৭ টি।

 

কর ধার্য শাখা

সেবা

নিয়ম/প্রক্রিয়া

কত সময় প্রয়োজন

নতুন হোল্ডিং নম্বর প্রদান

নতুন হোল্ডিং নম্বর এর ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবরে জায়গার মালিককে মালিকানার দলিল, পর্চা, দাখিলা, ডিসিআর অথবা বরাদ্দ প্রদানের রশিদ সহ সাদা কাগজে আবেদন করতে হবে। আবেদনের প্রেক্ষিতে সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক নির্ধারিত পদ্ধতিতে উক্ত কাঠামো বার্ষিক মূল্য নিরূপন করতঃ নতুন হোল্ডিং নম্বর প্রদান করা হয়।

৫০ দিন

 হোল্ডিং এর নাম জারি

খরিদ/দান/ওয়ারিশ সূত্রে আংশিক/সম্পূর্ন মালিকানা প্রাপ্ত হয়ে সংশ্লিষ্ট হোল্ডিং এ নাম জারি করতে ইচ্ছুক হলে আবেদন কারীকে হোল্ডিং এর মালিকানা রেজিষ্টার্ড দলিল,পর্চা, দাখিলা, ভূমি অফিস কর্তৃক প্রদত্ত নাম জারির সত্যায়িত কপি, উক্ত হোল্ডিং এর হালসন পর্যন্ত পৌর কর পরিশোধের রশিদ সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবর আবেদন করতে হবে। প্রাপ্ত আবেদনের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট হোল্ডিং এর পূর্ববর্তী মালিকের আপত্তি আছে কিনা তা জানতে চেয়ে বর্তমান মালিক এবং পূর্ববর্তী মালিককে শুনানির জন্য নোটিশ প্রদান করা  হয। শুনানি শেষে সরেজমিনে তদন্তপূর্বক আবেদনটি কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বিবেচিত হয়।

৩০ দিন

 হোল্ডিং পৃথকীকরণ

 হোল্ডিং মালিকগনের কর পরিশোধের সুবিধার্থে হোল্ডিং মালিকগনের আবেদনের প্রেক্ষিতে হোল্ডিং পৃথকীকরণ করা হয়। আবেদনের সাথে হোল্ডিং মালিকের মালিকানা সংক্রান্ত রেজিষ্টার্ড দলিল, পর্চা, দাখিলা, ভুমি অফিস কর্তৃক নাম জারির স্বপক্ষে সত্যায়িত কপি, ডিসিআর, বরাদ্দ পত্রের কপি, মালিকগণের মধ্যে আপোষ বন্টন নামা এবং হালসন পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট হোল্ডিং এর পৌর কর পরিশোধের রশিদ জমা প্রদান করতে হবে। আবেদন প্রাপ্তির পর নোটিশ প্রদান পূর্বক হোল্ডিং মালিকের শুনানি গ্রহন করা হয় এবং সরেজমিনে তদন্ত করা হয। সরেজমিনে তদন্তে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে এবং কাগজপত্র পর্যালোচনা পূর্বক হোল্ডিং মালিকগণের মধ্যে হোল্ডিং পৃথকীকরণ করা হয়।  

৩০দিন

পৌর কর পুনঃ নিধারন

পৌরকর পুণঃ নির্ধারনের ক্ষেত্রে সাদা কাগজে নির্ধারিত কর্তৃপক্ষ বরাবর আবেদন করতে হবে। কর পত্র প্রাপ্তির পর নির্ধারিত পি ফরমে ৩০ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে। যে কর পত্রের বিপরীতে আবেদন করা হয়েছে তা ফরমের সাথে জমা দিতে হবে। হোল্ডিং মালিককে নোটিশ প্রদান করতঃ শুনানী গ্রহন পূর্বক অথবা সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক অথবা কর্পোরেশন ষ্ট্যান্ডিং কমিটির সভা / সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক পৌরকর পুনঃ নির্ধারন করা হয়।

৯০ দিন।

 লোন রিবেট

গৃহ নির্মাণ লোন গ্রহণ পূর্বক হোল্ডিং নির্মিত হলে নির্ধারিত কর্তৃপক্ষের নিকট লোন রিবেট এর আবেদন করতে পারবেন। এরূপ আবেদনের সাথে রেজিষ্ট্রিকৃত রেহেন দলিল/বন্ধকী ঋনের দলিল ও মঞ্জুরী পত্র দাখিল করতে হবে।

৩০ দিন।

 দ্বৈত হোল্ডিং জনিত সমস্যা নিষ্পত্তি

কোন কারনে কোন হোল্ডিং এর বিপরীতে দ্বৈত হোল্ডিং সৃষ্টি হলে মূল হোল্ডিং মালিক সমস্যা সমাধানের জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আবেদন পত্রের সাথে মূল হোল্ডিং এর পৌরকর পরিশোধের রশিদ, হোল্ডিং এর পক্ষে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র যেমন রেজিষ্টার্ড দলিল, পর্চা, দাখিলা, ভুমি অফিস কর্তৃক নামজারীর সত্যায়িত কপি দাখিল করতে হবে। আবেদন প্রাপ্তির পর সরেজমমেনে তদন্ত পূর্বক কর বিধি মতে দ্বৈত হোল্ডিং জনিত সমস্যা সমাধান করা হয।

৬০ দিন।

 

কর আদায় শাখা

          প্রত্যেক হোল্ডিং মালিককে তার বসত অংশের জন্য এবং ভাড়া অংশের জন্য হোল্ডিং ট্যাক্স দিতে হয়। হোল্ডিং মালিক অথবা মালিকের অনুপস্থিতিতে দখলকারীকে হোল্ডিং ট্যাক্স দিতে হয়। হোল্ডিং ট্যাক্স ত্রৈমাসিক বা বাৎসরিক একবারে দেওয়া যায়। যারা অগ্রীম পৌরকর প্রদান করেন তাদের জন্য ১০% রিবেটের ব্যবস্থা আছে। মালিকের আবেদনের প্রেক্ষিতে ১৯৮৬ এর ১০ ধারা অনুসারে হোল্ডিংটি ৬০ দিনের অধিক খালি থাকিলে ভ্যাকান্ট রিভিশন  দেওয়া হয়। যারা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পৌরকর পরিশোধ করছেন না তাদের জন্য সারচার্জ, জরিমানা বা মালক্রোকের বিধান রয়েছে। কর আদায় শাখায় দৈনন্দিন নাগরিকদের যে সব সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে তার একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণী এবং সেবাসমূহ পাবার ক্ষেত্রে যে পদ্ধতি অনুসৃত হয় তা নিম্নে উল্লেখ করা হলোঃ

 

সেবার ধরন

পদ্ধতি/প্রক্রিয়া

কত সময় প্রয়োজন

কার সাথে যোগাযোগ করতে হবে

অফিসের অবস্থান

 পৌরকর পরিশোধ

সর্বশেষ পরিশোধিত ট্যাক্সের রশিদ দেখাতে হবে এবং নির্ধারিত পৌরকর নগদ/চেকের মাধ্যমে জমা দিতে হবে।

তাৎক্ষনিক

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের আদায়কারী, অফিস কালেক্টর অথবা কালেক্টর অব ট্যাক্সেস

ফোনঃ ৭৩২০৪৫

নগর ভবনের ২য় তলা

পৌরকর পরিশোধ সংক্রান্ত সনদ পত্র

1.       পৌরকর পরিশোধের হাল নাগাদ রশিদ।

2.        নির্দিষ্ট ফর্ম পূরণ।

৭দিন

কালেক্টর অব ট্যাক্সেস

 

নগর ভবনের ২য় তলা

 

 

লাইসেন্স (বাণিজ্য) শাখার কার্যাবলীঃ

 

 

 

সেবা সমূহ

পদ্ধতি/প্রক্রিয়া

ফিসের পরিনাম

কত দিন প্রযোজ্য

ট্রেড লাইসেন্স প্রদান

অগ্রিম ১০০০/- টাকার উৎসে কর প্রদানের চালানের কপি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জায়গার বৈধতা সম্পর্কিত কাগজ পত্র ও নবাযনের ক্ষেত্রে পূর্বের লাইসেন্স এর কপি সহ নির্দিষ্ট আবেদন ফরমে আবেদন করতে হবে।

ব্যবসার শ্রেনী, বিভাগ, ধরন অনুসারে সরকার নির্ধারিত সর্বনিম্ন ১০০/- টাকা হতে সর্বোচ্চ ১০,০০০/- টাকা।

নবায়নু ১/২ দিন

নতুন - ২/৩ দিন

 

 

লাইসেন্স (যানবাহন) শাখা

লাইসেন্স (যানবাহন) শাখার বিভিন্ন লাইসেন্স ফি ও কর তালিকা নিম্নে প্রদান করা  হ’লো ঃ

ক্রমিক নং

খাত

সংখ্যা

টাকা

১.

রিক্সা মালিকানা লাইসেন্স

 

১৪০/-

২.

রিক্সা চালক লাইসেন্স

 

২০/-

৩.

ক্যারেজ ভ্যানের লাইসেন্স সংখ্যা

 

১১৩/-

৪.

দুই চাকা ঠেলা গাড়ীর লাইসেন্স

 

৩৭/-

৫.

তিন চাকার প্রাইভেট বক্স ভ্যান

 

৮৩/-

৬.

চার চাকা ঠেলা গাড়ী

 

৮২/-

৭.

তিন চাকার ব্যক্তিগত রিক্সা লাইসেন্স

 

৮৪/-

ক)

বিজ্ঞপনের উপর করঃ

 

 

ক)  হোল্ডিং বোর্ড কর্পোরেশনের নিজস্ব জায়গায় প্রতি বর্গফুট বাৎসরিক।

১৫/-

খ)  হোল্ডিং বোর্ড ব্যক্তি মালিকানায় প্রতি বর্গফুট বাৎসরিক। 

১২/-      

গ)  নিয়ন সাইন কর্পোরেশনের নিজস্ব জায়গায় প্রতি বর্গফুট বাৎসরিক। 

২২/-

ঘ)  নিয়ন সাইন ব্যক্তি মালিকানায় প্রতি বর্গফুট বাৎসরিক। 

১৮/-

খ)

মোবাইল টাওয়ারের উপর কর (চলমান)

ক)  বেজ টাওযার প্রতি বাৎসরিক কর।

খ)  রুফ টপ টাওযার প্রতি বাৎসরিক কর।

১০,০০০/-

৫,০০০/-

           

 

সম্পত্তি শাখা

 

 

 

ক্রমিক নং

সেবার বর্ণনা

সেবা গ্রহনকারী ও প্রদানকারীর করণীয়

মন্তব্য

১.

কর্পোরেশন নিয়ন্ত্রাধীন/মালিকানাধীন পার্ক ভাড়া

কেএমপি’র অনুমোদন প্রাপ্তির পর সেবা গ্রহনকারী পার্ক ব্যবহারের নিমিত্তে কর্পোরেশনের নিকট ৭ (সাত) দন দাখিল করবেন। পার্কের প্রতিদিনের ভাড়া ৫০/- টাক।

৩ দিন

২.

কর্পোরেশন মালিকানাধীন কমিউনিটি সেন্টার ভাড়া প্রাপ্তি

 সেবা গ্রহনকারী কমিউনিটি সেনটার ব্যবহারের নিমিত্তে কর্পোরেশনের নিকট ১০ (দশ) কার্যদিবসের পূর্বে আবেদন দাখিল করতে হবে।

৫ দিন

৩.

কর্পোরেশন মালিকানাধীন জিয়া হল ভাড়া

সেবা গ্রহণকারীকে জিয়া হল ব্যবহারের নিমিত্তে মাননীয় মেয়র মহোদয় বরাবর ১০ (দশ) কার্যদিবসের  পূর্বে আবেদন দাখিল করতে হবে।

৫ দিন

৪.

রাস্তা/ খালের পার্শ্বস্থ জায়গা অবৈধ দখলমুক্ত করণ

অবৈধ দখল সংক্রান্ত কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে সম্পত্তি শাখা হ’তে সরেজমিনে তদন্ত, পরিমাপ করতঃ উচ্ছেদের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়ে থাকে।

প্রয়োজন অনুযায়ী

৫.

রাস্তা বা অন্য যে কোন কারনে জমি হস্তান্তর

যদি কোন ব্যক্তি রাস্তা/ড্রেন বা জনস্বাথ্যে কোন কারনে জমি হস্তান্তর করতে চাইলে প্রস্তাবিত জমির জমির মালিকানা সংক্রান্ত কাগজপত্র/দলিলাদি ও স্কেচ ম্যাপসহ খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নিকট আবেদন করবেন কেসিসি হতে দাখিলকৃত কাগজপত্র যাচাই-বাচাইঅন্তে সরজমিনে পরিদর্শন করবেন। সার্বিক বিষয় পর্যালোচনান্তে জমি হস্তান্তরের বিষয়টি কর্পোরেশন কর্তৃক বিবেচিত হলে আবেদনকারীকে উক্ত জমি মেয়র, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের অনুকূলে দানপত্র দলিলের মাধ্যমে সমজমিনে দখল হস্তান্তরের জন্য পত্র প্রদান করবেন। উল্লেখ্য যে, দলিল রেজিষ্ট্রি খরচ দাতা বহন করবেন।

৩০ দিন

৬.

রাস্তার নামকরণ                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                     

আবেদনকারীকে প্রস্তাবিত রাস্তার জমির মালিকানা সংক্রান্ত কাগজপত্র / দলিলাদি ও স্কেচ শ্যাপসহ খুলনা সিটি কর্পোরেশনের আবেদন করতে হবে। কেসিসি সার্বিক বিষয়ে পর্যালোচনান্তে ষ্টান্ডিং কমিটি ও  স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়েরঅনুমোদক্রমে রাস্তার নামকরণ করবেন।

৩০ দিন

 

শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক শাখা

খুলনা সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন তথ্যঃ

ক্রমিক

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম

ঠিকানা

টেলিফোন নং

১.

খুলনা কলেজিয়েট গার্লস স্কুৃল এন্ড কেসিসি উইমেন্স কলেজ

খানজাহান আলী রোড, খুলনা

৭২১৪২২

২.

ইসলামাবাদ কলেজিয়েট (ইংলিশ) স্কুল

বসুপাড়া লেন, খুলনা

৮১৩৭০৯

৩.

কেশব চন্দ্র  সংস্কৃত কলেজ

সাউথ সেন্ট্রাল রোড, খুলনা

 

৪.

দৌলতপুর দেয়ানা কলেজিয়েট স্কুল (নির্মাণাধীন)

দেয়ানা, খুলনা

 

৫.

নয়াবাটী হাজী শরীয়তুল্লাহ বিদ্যাপীট

খালিশপুর, খুলনা

৭৬১৩২৮

৬.

সিটি গার্লস স্কুল

শেখপাড়া, খুলনা

 

৭.

করোনেশন বিদ্যানিকেতন

গগণবাবু রোড, কাষ্টমঘাট, খুলনা

 

৮.

শহীদ জিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়

১ নং খামা বস্তি, খালিশপুর

 

৯.

.গোলাম মোক্তাদির মাধ্যমিক বিদ্যালয়

গোলাম মোক্তাদির রোড

নবপল্লী, খুলনা

 

১০.

নূরনগর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়

নূরনগর, খুলনা

 

 

* প্রতিষ্ঠান সমূহে ভর্তি  ও অন্যান্য যোগাযোগের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে যোগাযোগ করতে হবে।

 

১।         খুলনা সিটি কর্পোরেশন কলেজিয়েট গার্লস স্কুল।

২।         ইসলামাবাদ কলেজিয়েট (ইংলিশ মিডিয়াম) স্কুল।

৩।         কেশব চন্দ্র সংস্কৃত কলেজ।

৪।         দৌলতপুর দেয়ানা কলেজিয়েট স্কুল (নির্মাণাধীন)।

 

v                    কলেজিয়েট স্কুল-                            ৪ট।

v                    মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিক স্কুল-          ৬টি।

v                    মাধ্যমিক রেজিষ্টার বিদ্যালয়-            ৩১টি।

মোট স্কুলের সংখ্যা-                 ৪১টি

 

 

v                    মক্তব ও ফোরকানিয়া মাদ্রাসা-                                    = ৩৮৩টি।

v                    মক্তব ও মাদ্রাসার শিক্ষকের সংখ্যা-                 = ৪২৭জন।

v                    সকল স্কুলের মোট শিক্ষক ও কর্মচারীর সংখ্যা      = ১০৪জন।

v                    সর্বমোট শিক্ষক ও শিক্ষিকার সংখ্যা-                = ৫৩১জন।

মোট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা (৩৮৩+৪১)= ৪২৪ টি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মাননীয় মেয়র ও  দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের টেলিফোন নম্বর

 

মাননীয় মেয়র

 

ফোনঃ

৭২৫২৩৪

(অফিস)

 

 

৭২১৮০১

(বাসা)

 

মোবাইলঃ    ০১৭১৪-১১৩০৭২

 

 

পদবী

ফোন নং

 

অফিস

বাসা

মোবাইল

 

প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা

৭২০৪০৯

৭২৫২৫২

০১৭১২ ৫৪৮৪০৬

 

প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত)

৭২৫৫৬০

৭৩২১৮১

০১৭১১ ৩০৯৯৯৪

 

প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা

৭২০৬৪৯

৭৬২৫৫৯

০১৭১১ ৮৪০৭৭৬

 

নির্বাহী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক)

৭২১৩৩৭

৭৩০৪৪৮

০১৭১১ ১৩২৯৯২

 

নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ)

৭২১৩০৪

৮১০৯২৩

০১৭১৫ ১৬৬৯০০

 

কঞ্জারভেন্সী অফিসার

৭৩০১২৮

৭৩১৮৯১

০১৭১১ ২৭৫২৫৯

               

           

 

Promotion of Renewable Energy in Khulna Division

সৌর শক্তি প্রাকৃতিক সম্পদ। এই সম্পদকে কাজে লাগিয়ে সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন এ দেশের জ্বালানী সাশ্রয় ও বিদ্যুৎ ঘাটতি কমাতে সহায়তা করবে। এই উদ্দেশ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ব্রিমেন ইউনির্ভাসিটি, জার্মানীর আর্থিক সহযোগিতায় টিটিজেড, ইটালী ও ইউর‌্যাকের সহযোগিতায় এবং খুলনা সিটি কর্পোরেশনের অংশীদারিত্বে সোনাডাঙ্গা এনর্জি পার্কে নির্মিত হচ্ছে প্রমোশন অব রিনিউয়েবল এনার্জি ইন খুলনা ডিভিশনের আওতায় ট্রেনিং সেন্টার। এই ট্রেনিং সেন্টার থেকে সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন ও ব্যবহার বিষয়ে বিশেষ প্রশিক্ষন ও সহায়তা প্রদান করা হবে।

সোনাডাঙ্গা এনার্জি পার্ক

মহানগরী খুলনায় প্রাতঃভ্রমন ও বৈকালিক ভ্রমনের জন্য কোন নির্দ্দিষ্ট স্থান  বা পার্ক নেই। এই অভাব পূরণের প্রত্যাশায় খুলনা সিটি কর্পোরেশন সোনাডাঙ্গায় অবস্থিত নিজস্ব জায়গায় একটি প্রাতঃভ্রমণ ও বৈকালিক ভ্রমনের উপযোগী পার্ক নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহন করেছে। ইতোমধ্যে ১ম পর্যায়ে পার্কের অভ্যন্তরে ওয়াকওয়ে নির্মাণের জন্য টেন্ডার আহবান করা হয়েছে। পার্কের মাষ্টার প্লানে ২টি ওয়াকওয়ে, উন্মুক্ত মঞ্চ, রেস্তোরা, ভাসমান ডেক, সেড, বেঞ্চ, নার্সারী, টয়লেট, ডিপার্টমেন্টাল ষ্টোর প্রভৃতি অন্তর্ভুক্ত আছে। সোলার এনার্জি ট্রেনিং সেন্টারে উৎপাদিত সৌর বিদ্যুৎ দিয়ে এই পার্কের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ করা হবে।

Safe & Sustainable municipal waste management in Bangladesh- Wastesafe-II

খুলনা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রতিদিন প্রায় ৫২০ মেঃ টন গৃহস্থালী আবর্জনা উৎপন্ন হয়। তাই নিরাপদ ও টেকশই মিউনিসিপ্যাল আবর্জনা ব্যবস্থাপনা ও রি-সাইক্লিন পরিবেশের জন্য অত্যাবশ্যকীয়। ইউরোপীয় ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় বাহস ইউনির্ভাসিটি, জার্মানী, লুবনিন ইউনির্ভাসিটি পোল্যান্ড ও এশিয়ান ইনষ্টিটিউট অব টেকনোলজি, থাইল্যান্ডের সহযোগিতায় খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বয়ে এবং খুলনা সিটি কর্পোরেশনের অংশীদারিত্বে একটি প্রকল্প গ্রহীত হয়েছে।

প্রকল্পের আওতায় কাজের বিবরণীঃ

ক) ওয়েষ্ট ম্যানেজমেন্ট মাস্টারপ্লান তৈরী।

খ) জন সচেতনতা বৃদ্ধি করা।

গ) পাইলট স্কেল স্যানিটারী ল্যান্ডফিল তৈরী।

ঘ) আবর্জনা সংক্রান্ত সার্বিক পরিবেশের উন্নয়ন।

প্রকল্পের বাস্তবায়নকালঃজানুয়ারী ২০০৬ হতে ডিসেম্বর ২০০৯

 

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সাধারণ তথ্যাবলী

* পৌরসভা সৃষ্টির তারিখঃ

 

১২ ই ডিসেম্বর ১৮৮৪

* মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন হিসেবে উন্নীতঃ

 

১০ ই ডিসেম্বর ১৯৮৪

* সিটি কর্পোরেশন হিসেবে উন্নীতঃ

 

৬ ই আগষ্ট ১৯৯০

* মোট আয়তনঃ

 

৪,৫৬৫ বর্গ কিঃমিঃ (১৭.৬২ বর্গ মাইল)

* জনসংখ্যাঃ

 

১৫ লক্ষ (প্রায়)

* ওয়ার্ড সংখ্যাঃ

 

৩১ টি

* ওয়ার্ড কমিশনার (সাধারণ আসন)ঃ

 

৩১ জন

* মহিলা কমিশনার (সংরক্ষিত আসন)ঃ

 

১০ জন

* মোট সড়ক সংখ্যাঃ

 

১২১৫ টি

* সড়কের মোট দৈর্ঘ্যঃ

 

৩৫৬.৬৪ কিঃমিঃ

* ড্রেনের মোট দৈর্ঘ্যঃ

 

৬৪২.১৮ কিঃমিঃ

* সড়ক বাতির পয়েন্টঃ

 

১৮,৭৫০ টি

 

ক)

বাল্ব পয়েন্টঃ                                     ৪,৮৮৮ টি                

 

খ)

টিউব লাইট পয়েন্টঃ                            ৯,৭৬০ টি

 

গ)

সোডিয়াম লাইট পয়েন্টঃ                        ১,৩০২ টি

 

ঘ)

এনার্জি সেভার ল্যাম্প পয়েন্টঃ                  ২,৮০০ টি

* স্বয়ংক্রিয় ট্রাফিক সিগন্যাল ঃ

 

১৬ টি

* প্রোডাকশন ওয়েল ঃ

 

৭২ টি

* অগভীর নলকূপঃ

 

৬,২৫০ টি

* গভীর নলকূপঃ

 

৩,৪৪২ টি

* ষ্ট্রীট হাইড্রেন্টঃ

 

৬৩৫ টি

* হোল্ডিং সংখ্যাঃ

 

৬৬,২১৭ টি

* ট্রেড লাইসেন্স সংখ্যাঃ

 

১৭,০০০ টি

* লাইসেন্সধারী রিক্সার সংখ্যাঃ

 

১৭,০০০ টি

* পাবলিক হলঃ

 

২ টি

* সুপার মার্কেট / বিপণী বিতানঃ

 

৪ টি

* ওয়ার্ড অফিস / কমিউনিটি সেন্টারঃ

 

২৬ টি

* প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরিচর্যা কেন্দ্রঃ

 

২৪ টি

* ইউডিসি (UDC)t

 

৩৫ টি

* আধুনিক শিশু পার্কঃ

 

১ টি

* পার্কঃ

 

৬ টি

* কসাইখানাঃ

 

৩ টি

* মিট মার্কেটঃ

 

১ টি

* কবর স্থান ঃ

 

৮ টি

* শ্মশানঃ

 

৩ টি

* যাত্রী ছাউনি (নিজস্ব)ঃ

 

৮ টি

* বাজারঃ

 

২১ টি

* সম্পত্তিঃ

 

২৪১.০০ একর